রোগ-ব্যধিতে বেলের ব্যবহার

১.বেলের অনেক গুন।বেল পুড়িয়ে বা সিদ্ধ করে খেলে খিদে বাড়ে,হজম শক্তি বাড়ে।কাঁচা বেল পুড়িয়ে সকালে খালি পেটে বায়ু এবং কঠ নাশ হয়।পাকা বেলের চেয়ে কাচা বেলেই বেশি উপকার।

২.বেলপাতাও বেশ উপকারি।বেলপাতার রস পানিতে মিশিয়ে গোসল করলে ঘামের দূর্গন্ধ দূর হয়ে যায়।এক চামচ বেলপাতার রস খেলে কাচা-সর্দি ও জ্বরভার কেটে যায়।

৩.শোথ রোগ অর্থাৎ হাত-পাস ফুলে গেলেও বেলপাতার সজ্ঞে মধু মিশিইয়ে খেলে উপকার পাওয়া যায়।

৪.বেলেরফুল বেঁটে গোলমরিচে সজ্ঞে মিশিয়ে খেলে বমিভাব কেটে যায় ও অতিরিক্ত বমি হওয়া বন্ধ হয়।

৫.কচি বেল গোল করে কেটে শুকিয়ে গুড়ো করে নিলে ঘোলের সজ্ঞে মিশিয়ে খেলে আমাশা সেরে যায়।

 

 

                                                                              বেলে প্রতি ১০০ গ্রাম আছে

জলীয় অংশ ৭৭.৫ ক্যালসিয়াম ৩৮ মিঃ
মোট খনিজ ০.৯ লৌহ ০.৬
আঁশ ২.৯ ক্যারোটিন(মাইক্রোগ্রাম)
খাদ্যশক্তি(কিলোক্যালরি) ৮৭ ভিটামিন বি-১ ০.০৩
আমিষ ২.৬ ভিটামিন ০.০২ মিঃ
চর্বি ০.২ ভিটামিন-‘সি’ ৯মিঃ
শর্করা ১৮.৮

পাকা বেল বেশি ভালো নয়ঃ পাকা বেল কিন্তু গুরূপাক হজম করতে কষ্ট হয়।সুস্থ মানুষের সপ্তাহের দু-তিন দিনের বেশি পাকা বেল খাওয়া উচিত নয় ।কোষ্ঠকিয়াঠীন্য ভুগলে প্রতিদিন বিকেলে এক কাপ করে বেলের শরবত খেলে আট-দশ দিনের মধ্যে উপকার পাবে।

Comments

comments

Related posts

Leave a Comment