রোগ-ব্যাধিতে কলার ব্যবহার

১। ডায়াবেটিস রোগে অস্বাভাবিক খিদের উপ্সর্গ হলে পাকা কলা দিয়ে মেটানো যায়।

২। যক্ষা রোগীদের একটানা জ্বর থাকলে পাকা কলা খাওয়ানো যেতে পারে।

৩। পাকা কলা মোমবাতির আগুনে অল্প গরম করে নিয়ে একটু গোলমরিচের গুঁড়ো ছড়িয়ে খেলে হাঁপানি রোগীদের উপকার মিলবে।

৪। পেটের পুরানো ব্যাথায় বা মহিলাদের বিভিন্ন রোগের উপশমে পাকা কলা খাওয়া যেতে পারে।

৫। সকালে খালিপেটে কলাগাছের শিকড়ের রস এক চামচ করে কদিন খেলে পেটের কেঁচো কৃমি বেরিয়ে যায়।

৬। পাকা বিচিকলা চটকে অল্প পানিতে মিশিয়ে ছেঁকে নিয়ে সেই সকালে ও বিকালে দু”চামচ করে খেলে শুকনো কাশি সেরে যায়।

 

                        কলার প্রতি ১০০ গ্রামে আছে

জলীয় অংশ

৬২.৭ ক্যালসিয়াম ১৩ মিঃ
মোট খনিজ ০.৯ লৌহ ০.৯
আঁশ ০.৪ ক্যারোটিন(মাইক্রোগ্রাম) ০.০
খাদ্যশক্তি(কিলোক্যালরি) ১০৯ ভিটামিন বি-১ ০.১০
আমিষ ০.৭ ভিটামিন ৫.০১ মিঃ
চর্বি ০.৮ ভিটামিন-‘সি’ ২৪.১ মিঃ
শর্করা ২৫.০

Comments

comments

Related posts

Leave a Comment